ওরে বাটপার, আজহারীকে এতো জনপ্রিয় করেছিস কেন?

  • আপডেট টাইম : January 15 2020, 02:50
  • 342 বার পঠিত
ওরে বাটপার, আজহারীকে এতো জনপ্রিয় করেছিস কেন?

এমদাদুল হক:

আজহারীর ওপর বেশকিছু মেয়েদের ক্রাশ খাওয়ার পোস্ট সোস্যাল মিডিয়ায় দেখার পরেই মূলত আজহারীকে জানার ব্যাপারে উৎসাহিত হই। একপর্যায়ে আমি নিজেই আজহারীর আলোচনার ভক্ত হয়ে পড়ি।

ড. মিজানুর রহমান আল আজাহারী। অত্যাধুনিক, স্মার্ট, ইসলামিক স্কলার, হৃদয়স্পর্শী বক্তা। ভন্ড, মুখোশধারী, মাজারপূঁজারি, বাটপার, নিন্দুক, ছোটলোক, সংকীর্ণমনা এবং চক্রান্তকারীদের আতংক এই তরুণ স্পীকার ড. মিজানুর রহমান আল আজহারী।

তাকে নিয়ে বেশি বলতে চাইনা, কারণ বর্তমানে অনলাইন এবং অফলাইন দুনিয়া শুধু দখল নয়, বরং অধিকাংশ মানুষের মনপ্রাণ দখল করে স্বমহিমায় ইসলামের সুমহান আদর্শকে সারাবিশ্বে ছড়িয়ে দিচ্ছেন তিনি। দল-মত, ধর্ম-বর্ণ, নারী-পুরুষ, আবাল-বৃদ্ধ সবার কাছে জনপ্রিয়তায় একদম শীর্ষে তাঁর অবস্থান।

কিন্তু একটা বিষয় লক্ষ্য করছি, আজহারীর এই আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তার পেছনে কিংবা তাকে ভাইরাল করার পেছনে ভক্তদের চেয়ে সমালোচকরাই বেশি ভূমিকা পালন করছে।

ইদানিং আজহারী নামটা শুনতে শুনতে কান জ্বালাপালা হয়ে যাচ্ছে। আজহারীকে নিয়ে নিন্দুকদের এতো আহাজারি দেখে বিরক্ত হচ্ছে সাধারণ মানুষ।

আজহারীকে সহ্য করতে না পেরে হিংসার আগুনে জ্বলেপুড়ে ছারখার সংকীর্ণমনা নিন্দুকদের কষ্ট দেখে আমার নিজেরও মায়াকান্না করতে মন চায়!

বাস্তবতা হলো, আজহারীকে নিয়ে মুখোশধারী ভন্ডদের এমন চুলকানি দেখে সাধারণ মানুষ আজহারীকে জানার জন্য আরও বেশি উৎসাহিত হচ্ছে। একপর্যায়ে আজহারীর কথাবার্তা শুনে আকৃষ্ট হচ্ছে এবং সমালোচক, বাটপার ও ভন্ডদেরকে প্রত্যাখ্যান করছে বিবেকবান সাধারণ মানুষ।

আসলে বিরোধীরা নিজেদের অজান্তেই ড. মিজানুর রহমান আল আজাহারীর নাম ব্যাপকহারে প্রচার করছে। তাই আমি মনে করি, আজহারীকে এতো জনপ্রিয় করার জন্য তার বিরোধীদেরকেও ধন্যবাদ দেওয়া উচিত।

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, আজহারীকে জনপ্রিয় করার পেছনে সমালোচকরা এভাবে এতো বেশি ভূমিকা পালন করেছে কেন?

Sharing is Caring!

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর